বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ জুন ২০১৬

সংগ্রহ

বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস গত কয়েক দশকে বিভিন্ন সংস্থা/ উৎস থেকে বিপুল পরিমান নথিপত্র সংগ্রহ করেছে। এগুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কিছুর বর্ণনা নিম্নরূপ:

১। প্রসেডিংস ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের রেকর্ড:
বাংলাদশ জাতীয় অরকাইভস ১৮৫৪ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত সময়কালের পূর্ববাংলা সরকার, পূর্ব পাকিস্তান এবং বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের নথিপত্র সংগ্রহ করেছে।

২। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নথিপত্রঃ
জাতীয় আরকাইভসে সংরক্ষিত গুরুত্বপূর্ণ রেকর্ডপত্রের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের রেকর্ডপত্র। ২০০৮ সালের ২ এপ্রিল থেকে জাতীয় আরকাইভস মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এ রেকর্ড পত্র সংগ্রহ করছে। এতে ১৯৭১ -১৯৭২ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীগণের শপথ, নিয়োগ ও সময়কাল এবং মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের বিভিন্ন সভার কার্যবিবরনী ও নোটিশ রয়েছে।

৩।  ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার নথিপত্রঃ
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার অফিস থেকে ঐতিহাসিক গুণসম্পন্ন বিপুল পরিমান নথিপত্র সংগ্রহ করেছে। সংগৃহীত নথিপত্রগুলো ১৮৯৮-১৯৭১ সময়কালের এবং এগুলো রাজস্ব, বিচার, কোর্ট অব ওয়ার্ডস, সাধারণ প্রশাসনিক, হিসাব, উন্নয়ন ইত্যাদি বিষয়ভুক্ত। এছাড়াও সাম্প্রতিক সময়ে প্রায় তিন হাজার দুষ্প্রাপ্য সরকারি প্রকাশনাও ঢাকা বিভাগীয় অফিস থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

৪। চট্রগ্রম বিভাগীয় কমিশনার নথিপত্র
চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার অফিস থেকেও বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ঐতিহাসিক গুণসম্পন্ন বিপুল সংখ্যক নথিপত্র সংগ্রহ করেছ। সংগৃহীত নথিপত্রগুলো ১৮৮০-১৯৬০ সময়কালের এবং এগুলো রাজস্ব, বিচার, সংস্থাপন, সার্বিক, হিসাব ইত্যাদি বিষয়ভুক্ত। এছাড়া কিছু সংখ্যক প্রকাশনাও সংগ্রহ করা হয় বিভাগীয় কমিশনার অফিস থেকে। এসব নথিপত্র বর্ণিত সময়কালে চট্রগ্রাম অঞ্চলের জীবনযাত্রা, সমাজ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ ধারনা দেয়।
 
৫। জেলা রেকর্ডসঃ
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসে ১৭৬০ সাল থেকে ১৯১৫ পর্যন্ত সময়কালের কয়েক হাজার জেলা রেকর্ডস সংরক্ষিত আছে। এই জেলা রেকর্ডগুলোতে সরকার ও জেলা প্রশাসনের মধ্যে যে সব চিঠিপত্র আদান-প্রদান হয়েছে সেগুলো অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। প্রশাসিনকভাবে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী প্রশাসনের এবং বিশেষ করে কলেক্টরেট প্রতিষ্ঠার পর স্থানীয় প্রশাসনের প্রত্যাহিক কর্মকান্ডের  বিবরণ জেলা রেকর্ডগুলোতে রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় জেলা কারেক্টর ও তার অধীনস্থ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, জেলা প্রশাসনের সাথে সংশ্লিষ্ট স্থানীয় লোকজনের প্রাপ্ত ও প্রেরিত চিঠিপত্র, স্মারকপত্র, প্রতিবেদন, দরখাস্ত, দাপ্তারিক দলিলপত্র এবং স্থানীয় পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে সৃষ্টি হয়েছে এসব জেলা রেকর্ড। রেকর্ডগুলো মূলত প্রাচীন হস্তলিপিতে লিখিত তবে এগুলোর মধ্যে কিছু কিছু মুদ্রিত আকারেও দেখা যায়।
জেলা রেকর্ডগুলোর সংখিপ্ত তথ্য:

জেলার নাম সময়কাল  সংখ্যা
বরিশাল ১৭৯০-১৮৮৭ ৩৭১
বগুড়া ১৭৮৩-১৮৯৩ ৩৮
চট্রগ্রাম ১৭৬০-১৯০০ ৫৩৮
কুমিল্লা ১৭৮২-১৮৬৮ ৪৬৫
ঢাকা ১৭৮৩-১৮৫৯ ১৮৯
দিনাজপুর ১৭৮৬-১৯০০ ১১১৬
ফরিদপুর ১৭৯৯-১৮৬৮ ৯৩
যাশোর ১৭৮৬-১৮৬৮  ৫০৬
ময়মনসিংহ  ১৭৮৭-১৮৬৯ ৩৭
নোয়াখালী  ১৮৪০-১৮৭৯ ৯১
পাবনা ১৮২০-১৮৮৬ ২৬৭
রাজশাহী ১৭৮২-১৮৭৮ ১৯২
রংপুর ১৭৭৭-১৮৭৯ ৫১৩
সিলেট ১৭৭৭-১৮৭৮  ৪২৩
  মোট = ৪৮৩৯

৬। কালেক্টরেট রেকর্ড:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস দেশের বিভিন্ন জেলা কালেক্টরেট রেকর্ডরুম থেকে বিপুল সংখ্যক জেলা কালেক্টরেট রেকর্ডস সংগ্রহ করেছে। এগুলো হলোঃ
ঢাকা কালেক্টরেট রেকর্ডস - ১৮৮৯-১৯৬০
যশোর কালেক্টরেট রেকর্ডস - ১৭৮৬-১৮৬৮
ময়মনসিংহ কালেক্টরেট রেকর্ডস - ১৮৮০-১৯৬৩
ফরিদপুর কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮৮০-১৯৪৭
বগুড়া কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮৪৬-১৮৭৬
রাজবাড়ী কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮৭২-১৯৯০
রংপুর কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৭৭৪-১৯৬৪
খুলনা কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮৮৪-১৯৭২
পাবনা কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮৪৫-১৯২০
সুনামগঞ্জ কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮১৮-১৯৭০
সিলেট কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৭৯৩-১৯৭২
রাঙ্গামাটি কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৯০০-১৯৭০ ও
বরিশাল কালেক্টরেট রেকর্ডস -১৮৯৯-১৯৮৬

৭। বাংলা সরকার পূর্ব বাংলা এবং পূর্ব পকিস্তানের প্রসিডিংস/ফাইলপত্রঃ
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস বাংলাদেশ সচিবালয় রেকর্ডরুম থেকে পূর্ববাংলা সরকারের ১৮৫৯-১৯৬৪ সময়কালের বিপুল সংখ্যক প্রডিসিংস ও ফাইলপত্র সংগ্রহ করেছে। এ সকল নথিপত্রের মূল উৎস হচ্ছে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর বানিজ্যিক লেনদেন এবং পরিবর্তীকালের কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক সরকারের প্রশাসনিক তৎপরতা। এতে প্রধানতঃ সরকারের বিভিন্ন পত্র, আদেশ, রেজুলেশন, নিয়ম/রুলস, প্রতিবেদন ইত্যাদি রয়েছে।

৮। ঢাকার সিটি কর্পোরেশন রেকর্ডসঃ
বাংলাদেশ জাতীয় অরকাইভস ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের লক্ষীবাজারে অবস্থিত রেকডরুম  থেকে (পুরাতন সিটি কর্পোরেশন অফিস, বর্তমানে এটি মহিলা কলেজ) বিপুল সংখ্যক ঐতিহাসিক গুণসম্পন্ন নথিপত্র সংগ্রহ করেছে। এসব নথিপত্র ১৮২৬-১৯৯৫ সময়কালের।

৯। জেলা পরিষদ রেকর্ডসঃ
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস বিভিন্ন জেলা পরিষদের রেকর্ডস সংগ্রহ করেছে। যথা:-  
ঢাকা জেলা পরিষদ রেকর্ডস ১৯৪০-১৯৯০
    রংপুর জেলা পরিষধ রেকর্ডস ১৮৮৫-১৯৯০

১০। নারায়ণগঞ্জ পেীরসভা রেকর্ডসঃ
বাংলাদেশ জাতীয় অরকাইভস নারায়ণগঞ্জ পেীরসভা থেকে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র সংগ্রহ করেছে। এ নথিপত্রগুলি ১৮৮০-১৯৮০ সময়কালের।

১১। সিলেট প্রসেডিংস /ফাইলঃ
সিলেট জেলা যখন আসাম প্রদেশের অর্ন্তভূক্ত ছিল এ সময় বেশকিছু সংখ্যক রেকর্ডস সৃষ্টি হয়। এই রেকর্ডগুলো সাধারণত সিলেট প্রসেডিংস নামেই পরিস্থিতি। এগুলোর সময়কাল ১৮৭৪-১৯৭৪ পর্যন্ত। এই নথিপত্রগুলো উপনিবেশিক সময়কালের সিেিলটের মানুষের জীবনযাত্রা, আর্থ-সামাজিক, রাজনৈতিক এবং সাংস্কৃতিক বিষয়ের মূল্যবান তথ্য ভান্ডার ।

১৩। পুরাতন ম্যাপ (১৭৪০-১৯৬৭):
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার অফিস এবং দেশের বিভিন্ন জেলা কালেক্টরেট রেকর্ডরুম থেকে ১৮৫৪-১৯৬৭ সময়কারের বাংলা প্রদেশ তথা বিভিন্ন বিভাগ জেলা ও থানাওয়ারী বিপুল সংখ্যক ম্যাপ সংগ্রহ করেছে। সংগৃহীত ম্যাপের তালিকা নি¤œরুপ ঃ-

  •    রেনেলের সার্ভে ম্যাপঃ ঢাকা জেলা -১৭৮০, চট্রগ্রাম জেলা -১৭৭৮ এবং আরেকটি জেলা ও নদীর ম্যাপ
  •     ঢাকা জেলার পুরাতন থানা ম্যাপ
  •     পুরাতন জেলা ম্যাপ (১৯১১-১৯১৪)
  •     বিভিন্ন জেলার পরগনা ম্যাপ(১৮৩৯-১৮৬১)
  •     বিভিন্ন অঞ্চলের “চর” এর ম্যাপ
  •     গুরত্বপূর্ণ নদীর ম্যাপ (১৯৮০-১৯৮২)
  •     ১৯২৩ সালের আসাম ও বাংলা প্রদেশের ম্যাপ।
  •     উনিশ শতকের ম্যাপ।
  •     ১৯৫০ সালের পাকিস্তানের জরিপ ম্যাপ।
  •     ১৯৬৬ সালের পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের রাজনৈতিক ম্যাপ।
  •     ভারতের নদ-নদী ও রেলওয়ে ম্যাপ (১৯৫০)।
  •     পদ্মার দিয়ারা জরিপ ম্যাপ: ঢাকা ও ফরিদপুর অঞ্চল -১৮৭৭ -১৮৮৮।
  •     দিয়ারা জরিপ ম্যাপ: বাকেরগঞ্জ, ঢাকা ও ময়মনসিংহ-১৮৮০-১৮৮১।
  •     দিয়ারা জরিপ ম্যাপ: নদী ও চর -১৮৮১-১৮৮২।
  •     ঢাকা, ত্রিপুরা, বাকেরগঞ্জ ও ফরিদপুর ম্যাপ: ১৮৭৮-১৮৭৯।
  •     ঢাকা পেীরসভা ম্যাপ: বিশ্ববিদ্যালয় পরিকল্পনা -১৯১২-১৯১৫।

১৪। সরকারি প্রাকাশনা (১৮০০-১৯৭২):
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস  ১৮০০-১৯৭২ সময়কালের বিপুল সংখ্যক গুরুত্বপূর্ণ ও দূর্লভ/দুষ্প্রাপ্য প্রশাসনিক রিপোর্ট, অধ্যাদেশ, পার্লামেন্টারী দলিলপত্র ইত্যাদি সংগ্রহ করেছে।

১৫। গেজেট:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ১৮৩২-২০১০ সময়কালের কলকাতা গেজেট, পাকিস্তান গেজেট ও বাংলাদেশ গেজেট সংগ্রহ করেছে। ১৯৭৩ সাল থেকে বাংলাদেশ প্রিন্টিং ও স্টেশনারী নিয়ন্ত্রকের অফিস থেকে নিয়মিত বাংলাদেশ গেজেট সংগ্রহ করছে।

১৬। এস্টেট রেকর্ডস:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের আরেকটি মূল্যবান সংগ্রহ হচ্ছে এস্টেট সংগ্রহ বা জমিদারি নথিপত্র। এগুলো মূলত পূর্ববাংলা নেতৃস্থানীয় দুটি জমিদার পরিবারের জমিদার ও জমিদারী ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত নথিপত্র। যথা:
(ক) ঢাকা নওয়াব এস্টেট রেকর্ডস (১৮০৬-১৯৪৭) ও
(খ) ভাওয়াল রাজ এস্টেট রেকর্ডস (১৮৮৪-১৯৪৬)

১৭। পূর্ব পাকিস্তান ও বাংলাদেশ রেকর্ডস:
সচিবালয় রেকর্ডরুম থেকে পূর্ব পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সরকারের অল্প পরিমান দলিলপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। এ  দলিরপত্রগুলো মূলত ১৯৬২-১৯৭৫ সময়কালের। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেÑ
(ক) সংস্থাপন
(খ) বাণিজ্য
(গ) অর্থ
(ঘ) কেবিনেট সেক্রেটারিয়েট
(ঙ) রাজনৈতিক ও
(চ) ভূমি অধিগ্রহণ সম্পর্কিত।

১৮। সংবাদপত্র:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের সংগ্রহে ১৯৪৭-২০১৩ সময়কালের জাতীয় সংবাদপত্র সমূহ সংরক্ষিত রয়েছে। সংরক্ষিত সংবাদপত্রের তালিকা নিরূপ:

ক্র:নং     বাংলা পত্রিকার নাম    বৎসর
১    দৈনিক আজাদ            ১৯৪৭-১৯৮৮
২    দৈনিক আজকের কাগজ     ১৯৯২-১৯৯৫, ২০০০-২০০৩,২০০৫,২০০৭
৩    দৈনিক আল-আমিন      ১৯৯৪-১৯৯৫,১৯৯৭
৪    দৈনিক ইত্তেফাক          ১৯৬৩-১৯৬৬, ১৯৬৯-১৯৯৭, ২০০০-২০১২
৫    দৈনিক ইনকিলাব          ১৯৮৬-১৯৯৯, ২০০৬, ২০০৮
৬    দৈনিক কিষাণ          ১৯৮২
৭    দৈনিক খবর             ১৯৮৬-১৯৯০
৮    দৈনিক গণকণ্ঠ        ১৯৭২-১৯৭৪, ১৯৭৯-১৯৮১
৯    দৈনিক জনকণ্ঠ         ১৯৯৩-১৯৯৭
১০     দৈনিক জনতা         ১৯৮৪-১৯৯৭
১১     দৈনিক জনপদ       ১৯৭৩-১৯৭৫,৭৯, ৮৪, ৯৩, ৯৫-৯৬
১২     দৈনিক দিনকাল       ১৯৮৭-৮৮, ১৯৯১-১৯৯৯
১৩     দৈনিক দেশ         ১৯৭৯-১৯৮৬
১৪     দৈনিক পূর্বদেশ       ১৯৬৯-১৯৭৫
১৫     দৈনিক পাকিস্তান        ১৯৬৪-১৯৭১
১৬     দৈনিক বাংলা          ১৯৭২-১৯৯৭
১৭     দৈনিক বাংলাবাজার      ১৯৯২-১৯৯৯
১৮     দৈনিক বাংলারবাণী   জুলাই ১৯৭২, ১৯৭৫, ১৯৮১-৯৮
১৯     দৈনিক ভোরের কাগজ     ১৯৭২-২০০১
২০     দৈনিক যুগান্তর     ১৯৭৪-১৯৭৫, ২০০১-২০০২, ২০০৪, ২০০৯
২১     দৈনিক সংগ্রাম   ১৯৭০-১৯৭৩, ১৯৭৭-৯৭, ২০০৬
২২     দৈনিক সংবাদ     ১৯৬৯-১৯৭১, ৭৩-৯৭, ২০০২-২০০৭
২৩     দৈনিক আজাদী     ১৯৮০-১৯৮২, ৮৬-৮৮, ৯১-৯৭
২৪     দৈনিক সমাচার     ১৯৯১, ১৯৯৩, ১৯৯৭
২৫     দৈনিক পূর্বকোণ    ১৯৯৫, ১৯৯৭
২৬     দৈনিক বার্তা     ১৯৭৭-১৯৮৮
২৭     দৈনিক রূপালী     ১৯৯৩-১৯৯৭
২৮     দৈনিক যায়যায় দিন   ২০০৬-২০০৭, ২০০৯
২৯     দৈনিক প্রথমআলো   ১৯৯২-২০০৭
৩০     দৈনিক মিল্লাত   ১৯৭৭-৭৮, ৮৩, ৮৮, ৯৩, ৯৫, ৯৭
৩১     দৈনিক মুক্তকণ্ঠ     ১৯৯৮-১৯৯৯
৩২     দৈনিক নব অভিযান   ১৯৮৬-১৯৮৮
৩৩     দৈনিক সমাজ   ১৯৭২-১৯৭৪
৩৪     দৈনিক আল-মুজাদ্দেদ     ১৯৯৫
৩৫     দৈনিক বাংলার মুখ   ১৯৭৭, ৭৯, ৮২
৩৬     দৈনিক দেশবাংলা    ১৯৭৭
৩৭     দৈনিক স্বদেশ     ১৯৭২-৭৩
৩৮     দৈনিক শক্তি   ১৯৭৭, ৭৯, ৯৪
৩৯     দৈনিক গণশক্তি   ১৯৭৭-৭৯
৪০     দৈনিক লাল সবুজ   ১৯৯২-৯৭
৪১     দৈনিক আমারদেশ     ২০০৫, ২০০৬, ২০০৯
৪২     দৈনিক নয়াদিগন্ত   ২০০৫, ২০০৭   
ইংরেজি সংবাদপত্র
৪৩    The Pakistan Observer   ১৯৬০-৭১
৪৪     The Ananda Bazar ১৯৭২-১৯৭৮, ১৯৯১-৯২
     
বিদেশী সংবাদ
৪৫     The Dawn         ১৯৪৬-১৯৭১
৪৬     Herald Tribun     ১৯৮০,১৯৯০, ১৯৯৪

১৯। প্রেসক্লি¬পিং:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রেস ইনফরমেশন বিভাগ থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সংবাদপত্রের প্রেস ক্লিপিং সংগ্রহ করেছে। এই সংগ্রহের মধ্যে রয়েছে ১৯৬২-১৯৯৭ সাল পর্যন্ত জাতীয় দৈনিকপত্রিকা গুলোতে প্রকাশিত প্রধান প্রধান ঘটনাবলী।

২০। মাইক্রোফিল্ম:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস ইউনিস্কোর আর্থিক সহযোগিতায় লন্ডনস্থ ইন্ডিয়া অফিস লাইব্রেরী থেকে ১৮৭৪-১৯১৬ সময়কালের বাংলা সংবাদপত্রের কিছু অংশের ৫৭টি মাইক্রোফিল্ম রোল সংগ্রহ করেছে। মাইক্রোফিল্ম রোল সংগ্রহে ওঈঅ সহযোগিতা করেছে। এছাড়া জাতীয় আরকাইভস পর্তুগালের লিসবন থেকে একটি বাংলা গধহঁংপৎরঢ়ঃ সংগ্রহ করেছে।

২১। ব্যক্তিগত নথিপত্র সংগ্রহ:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস অবিভক্ত বাংলার মন্ত্রী, মুসলিম নেতা মরহুম খান বাহাদুর নাওয়াব আলী চেীধুরীর কিছু ব্যক্তিগত নথিপত্র সংগ্রহ করেছে। এছাড়াও বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস বিশিষ্ট ঐতিহাসিক অধ্যাপক মোহাম্মদ ইসহাক,  ইমিরেটস অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম, অধ্যপক ড. শরিফুদ্দিন আহমেদ, অধ্যপক এ কে এম মোহসিন, অধ্যাপক ড. আবদুল করিম এবং অধ্যাপক ড. ইফতেখারুল আউয়াল এবং সাবেক সচিব জনাব লতিফুর বারীর নথিপত্র সংগ্রহ করেছে।

২২। জাতীয় আরকাইভস গ্রন্থাগার:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভসের সাথে সাথে সংযুক্ত দুষ্প্রাপ্য পুস্তাকের একটি গ্রন্থাগার রয়েছে। এখানে প্রায় সাত হাজার পাঁচশত (৭৫০০) পুস্তক রয়েছে। রেফারেন্স গ্রন্থের সংগ্রহশালাটি শুধুমাত্র গবেষকগণই ব্যবহার করতে পারেন।

২৩। রেডিও মনিটারিং রিপোর্ট:
বাংলাদেশ বেতার পরিবেশিত দৈনিক রেডিও মনিটরিং রিপোর্ট ১৯৮৭ সাল থেকে জাতীয় আরকাইভসে সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করছে।

২৪। প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নথিপত্র:
বাংলাদেশ জাতীয় আরকাইভস দেশের কয়েকটি প্রাচীনতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দলিল দস্তাবেজ সংগ্রহ করেছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে বরিশাল জিলা স্কুল, ঢাকার সেন্ট গ্রেগরী হাই স্কুল, পোগজ হাই স্কুল, রাজশহী নবাবগঞ্জের হরিমোহন ইনষ্টিটিউট, যশোরের সাতিয়ানতলা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এবং গঙ্গারাম প্রসন্ন কুমার উচ্চ বিদ্যালয়।

 


Share with :
Facebook Facebook